শ্রী শিবেন্দু লাহিড়ী সম্পর্কে দু-একটি কথা

আধ্যাত্মিক বাজারে তথাকথিত আধ্যাত্মিক ব্যক্তিরা যতই লম্বা-চওড়া দাবী করুক না কেন, যে ক্রিয়াযোগের ক্ষেত্রে তারাই একমাত্র সবজান্তা, কিন্তু বাস্তবে হয়তো কেউই শিবেন্দু লাহিড়ী (জন্ম 1939) যিনি বিখ্যাত গৃহিযোগী লাহিড়ী মহাশয়ের(1828-1895) প্রপৌত্র, তাঁর মত প্রকৃত ক্রিয়াযোগ শেখাবার পদ্ধতি ও স্বাধ্যায়ের বাণী এই পৃথিবীতে আজ পর্য্যন্ত দিতে পেরেছে।লাহিড়ী মহাশয় (পুরোনাম  - শ্যামাচরণ লাহিড়ী) এই পৃথিবীতে সত্যানুসন্ধান কারীদের কাছে পরিচিত হতে পেরেছেন একটি বিখ্যাত বইয়ের কারনে, যেটি রচনা করেছিলেন পরমহংস যোগানন্দ আর সেই বইটির নাম হোল “অটোবায়োগ্রাফী অফ এ যোগী” এবং এই বইটি পৃথিবীর বহু ভাষাতে অনুবাদও হয়েছে।শিবেন্দু এই ক্রিয়া দিক্ষা পেয়েছিলেন ভারতবর্ষের শতাব্দী প্রাচীন ঋষি-পরম্পরা অর্থাৎ বংশপরম্পরায় বাবার কাছ থেকে ছেলে এই ভাবে। শিবেন্দু 1960 সালে বারানসীতে অবস্থিত তাঁদের পারিবারিক মন্দির ‘সত্যলোকে’ তাঁর বাবা   -সত্যচরণ লাহিড়ী মহাশয়ের থেকে এই যোগদীক্ষা পেয়েছিলেন। Guruji-Shibendu-Lahiri-04

ক্রিয়াযোগ কি?

ক্রিয়াযোগ দীক্ষার পূর্বে ক্রিয়াযোগের সম্পর্কে সার কথা সবার প্রথমে আমরা বোঝার চেষ্টা করবো যে ক্রিয়াযোগ কি নয় :- এ কোন শারিরীক ব্যায়াম বা আত্ম-সম্মোহনকারী কার্যক্রম নয়। এটা শারিরীক এবং মানসিক স্বাস্থ্যের দাবী করার অধিকার প্রাপ্ত কোন সংস্থার ধোঁকাও নয়। এটা তান্ত্রিক, মান্ত্রিক অথবা যান্ত্রিক কোন ভোজবাজীও নয়। এটা কোন চতুর এবং মতলবী, কট্টর এবং কাল্পনিক বিশ্বাস-পদ্ধতির মগজ ধোলাইও নয়। এটা কোন কাহিনী, অনুমান বা অলৌকিক প্রদর্শনের মাধ্যমে ক্ষনিকের জন্য প্রশান্তি, সুরক্ষা এবং সান্ত্বনার খোঁজও নয়। আরো পড়ুন